Essay

পহেলা বৈশাখ উদযাপন: সংস্কৃতির ‘সমন্বয়’, ঐতিহ্যের ‘নির্মাণ’ ও সাম্প্রতিক বাদানুবাদ

বাংলা সন : সমন্বয় সাধনের এক সাহসী প্রচেষ্টার ফল অর্মত্য সেনের ‘দি আর্গুমেন্টেটিভ ইন্ডিয়ান’ বইতে ক্যালেন্ডার নিয়ে একটা ছোট প্রবন্ধ আছে। ভারতবর্ষে যে বিভিন্ন ধরনের ক্যালেন্ডার/বর্ষপঞ্জিকা আছে সেটা নিয়েই মূলত আলাপ। একটি দেশের ভেতরে অস্তিত্বমান বিভিন্ন ধরনের পঞ্জিকার নজির দিয়ে তিনি আসলে এখানকার সংস্কৃতিতে চালু থাকা ভাবনাচিন্তার বহুরূপী ধারা-উপধারাকে বোঝার চেষ্টা করছেন। এই পঞ্জিকা/ক্যালেন্ডারের ইতিহাস, ব্যবহার ও সামাজিক অনুষঙ্গ অধ্যয়ন দেশ ও সংস্কৃতির অনেককিছু বুঝতে সাহায্য করে। যেমন সেন বলছেন, ক্যালেন্ডারের প্রায়শই ধর্মীয় একটা ভূমিকা থাকে, তবে ক্যালেন্ডার ও সংস্কৃতির মধ্যকার যে সম্পর্ক তা এই প্রাথমিক যোগসূত্র ছড়িয়ে অনেক দূর পর্যন্ত প্রসারিত। যেহেতু ক্যালেন্ডার প্রস্তুত করার জন্য গণিত ও জ্যোতির্বিজ্ঞানের ব্যবহার জরুরি, সেহেতু এই ইতিহাসপাঠ একটা সমাজের নানাবিধ ঐতিহাসিক বিকাশ সম্পর্কেও ধারণা দেয়। সেন কলিযুগ পঞ্জিকা, বুদ্ধনির্বাণ পঞ্জিকা, বিক্রম সংবৎ পঞ্জিকা, শকাব্দ, বেদাঙ্গ জ্যোতিষ পঞ্জিকা, বাংলা সন, কোল্লম পঞ্জিকা, মহাবীর নির্বাণ পঞ্জিকা,...

রাজনৈতিক অবচেতন

মার্কসবাদ বিকাশের শুরু থেকেই রাজনৈতিক অবচেতন বিষয়টিকে শ্রেণী সংগ্রামের বিভিন্ন প্রেক্ষাপট থেকে বিচার বিশ্লেষণ হতে থাকে। পরবর্তীতে উত্তর-মার্কসবাদী চিন্তকদের মাধ্যমে রাজনৈতিক জ্ঞানভাষ্যে এটি একটি তাৎপর্যপূর্ণ পরিসর তৈরি করে। অবচেতনের জিজেকিয়ান বিশ্লেষণমূলক কাঠামোর উপর ভিত্তি করে এ প্রবন্ধে রাজনৈতিক অবচেতন সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে। তাই এটি ধ্রুপদী মার্কসবাদের মধ্যে যে অবচেতনের ধারণা রয়েছে তা থেকে স্বতন্ত্র।  রাজনৈতিক অবচেতন বলতে কোন ধরনের ভ্রান্ত সচেতনতাকে বুঝায় না। ভ্রান্ত সচেতনতা বলতে বুঝায় জনগণ কোন একটি ব্যাপারে সচেতন না থাকলেও তার গুপ্ত ভাবাদর্শের ফলে এটি কাজ করে। ভ্রান্ত সচেতনতা হচ্ছে কোন ব্যাপারে ব্যক্তি বা জনসাধারণের অস্বীকৃতি। অন্যদিকে রাজনৈতিক অবচেতন হচ্ছে একধরনের স্বীকৃতি। যে স্বীকৃতি ভ্রান্ত বা প্রতীকী প্রক্রিয়ায় কাজ করে। রাজনৈতিক অবচেতনের মধ্যে জনসাধারণ কোনকিছুর ব্যাপারে ভ্রান্ত বা প্রতীকী স্বীকৃতি প্রদান করে বলেই এটি কাজ করে। এটি ভ্রান্ত সচেতনতার মতো বিভ্রম নয় বরং এটি...

Youth Journal

Caste and the Digital Sphere

Commentary by Professor Chaise LaDousa Shreeti Shubham joins scholars like Frank Cody and Sahana Udupa in questioning and critiquing ideologies that celebrate the digital sphere in India for its promise of making possible democratic activity and participation by those who have traditionally lacked access to the public sphere. Whereas digital technology in India is widespread, Shubham shows that thinking about the digital sphere in India entails much more than questioning who possesses what technology — although the distribution of smartphones, for example, is highly unequal and exhibits inequalities. Shubham’s focus is on the ways in which the digital sphere has made possible social activity and cultural production such that Brahmin subjects and Brahmin subjectivity have found articulations in groups fostered by the internet. Such groups require explicit identification for membership,...

Interview

Bangladesh in global literature: Shuddhashar interviews Nadeem Zaman and Arif Anwar

Bangladeshi literature has historically been insulated from the world, floundering, thriving, and existing in a cocoon of its own making. To that end, the advent of Bangladeshis writing in English has been a catalyst for change. As Bangladesh adds its literature to the world’s, we speak to novelists Nadeem Zaman (In The Time Of The Others and Up In The Main House And Other Stories) and Arif Anwar (The Storm) - two prominent voices amongst the nascent Anglophone literary scene of the country - about being writers, being Bangladeshi, and being both. They offer a glimpse of the trials and triumphs of the lives of writers, especially of those from lesser-known nations of global literature, of being from the global South and writing in the world’s lingua franca, and of the...

Translation

জন স্টুয়ার্ট মিলের সত্যতার দাবী

অনুবাদকের ভূমিকা: যে-কোনো একটি বিষয়ে মত প্রকাশ করতে গিয়ে পক্ষ-বিপক্ষ ভাগ হয়ে বিশাল কলহ বাঁধিয়ে তোলার ব্যাপারে আমরা বিশেষ দক্ষতা অর্জন করেছি। বিষয়গুলোর কোনটা কেমন গুরুত্ব পাওয়ার দাবিদার সে প্রসঙ্গেও আমরা নিশ্চিতভাবে বিবদমান দুটি পক্ষকে মাঠে পেয়ে যাব। উভয়পক্ষ তাদের মতামতকে ‘একমাত্র’ সত্য ও ন্যায্য বলে দাবি করে থাকে। যুক্তির পথ অনুসরণ করে যদি আমরা এই মতামতগুলোর মধ্যে সত্যতা অনুসন্ধান করতে যাই, তাহলে কী দেখতে পাব? ব্রিটিশ প্রয়োগবাদী দার্শনিক জন স্টুয়ার্ট মিল তাঁর বিখ্যাত গ্রন্থ অন লিবার্টিতে (১৮৫৯) সমাজ ও রাষ্ট্রের মধ্যে স্বকীয় নৈতিক মত প্রতিষ্ঠা করতে গিয়ে সত্যতা সম্পর্কে আলোচনা করেছেন। ইউরোপীয় সভ্যতার ইতিহাস ও ঐতিহ্যের মধ্যে খ্রিষ্টীয় নৈতিকতাকে আমলে নিয়ে তিনি উদারনৈতিক ব্যবস্থার কথা বলেছেন। বিরুদ্ধ কোনো মত যদি সমাজ ও রাষ্ট্রে কোনঠাসা হতে হতে হারিয়ে যায় তাতে মানবজাতির কী ক্ষতি হয় তা তিনি আমাদের স্মরণ করিয়ে...

স্লাভো জিজেকের দ্যা সাবলাইম অবজেক্ট অব আইডিওলজির ভূমিকা অংশ

অনুবাদকের ভূমিকা: বৈরিতা বিষয়টিকে স্লাভো জিজেক (Slavoj Žižek) তার বিশ্লেষণ পদ্ধতিতে তাৎপর্যপূর্ণ হিসেবে বিবেচনা করেন। কেননা বৈরিতাকে স্বীকৃতি প্রদানের মাধ্যমেই সবার্ত্মকবাদী তৎপরতাকে নির্মূল করা সম্ভব। একসময় ফুকো-হাবারমাসের চিন্তাকে ঘিরে সামাজিক বিশ্লেষণমূলক তৎপরতা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠেছিলো। কিন্তু তাদের উভয়ের সাবজেক্টের মধ্যে এ বিষয়টিকে আমলে নেওয়া হয়নি। যার ফলে তাদের সাবজেক্টের ধারণা বৈরিতাকে স্বীকৃতি না দিয়েই এর সাথে সামঞ্জস্য বা অসামঞ্জস্যের সম্পর্ক গড়ে তুলে। এখানে জিজেক আলথুসার ও লাকাঁর চিন্তাকে অগ্রবর্তী হিসেবে বিবেচনা করেন কেননা তারা উভয়েই বৈরিতাকে গুরুত্বের সাথে স্বীকৃতি প্রদান করেছেন। বৈরিতাকে স্বীকার করার ফলাফল হচ্ছে বিভিন্ন ধরনের মৌলিক বৈরিতাকে উন্মোচন করা। প্রত্যেকটি মৌলিক বৈরিতাই এককভাবে গুরুত্বপূর্ণ এবং এর মোকাবিলাও এককভাবে করতে হয়। সাম্যবাদ, পরিবেশবাদ, শ্রমিক আন্দোলন প্রত্যেকেরই তাদের নির্দিষ্ট জায়গা থেকে বৈরিতার সাথে মোকাবিলা করতে হয়। কোন সার্বজনীন তৎপতার মধ্য দিয়ে এগুলো সমাধান করার প্রেষণাই হচ্ছে সর্বাত্মকবাদী প্রেষণা। তাই...

Review

Are We All The Worst Person in The World?

Joachim Trier´s The Worst Person in the World (Verdens verste menneske) has left the world in unanimous awe since its initial release in October last year. The film is the third and final addition to the director´s Oslo trilogy, the previous two instalments being Reprise (2006) and Oslo, August 31st(2011). The city of Oslo is the common ground and plays a vital character in these films as the plot unfolds. The trilogy carries a very realistic resume of human life and what it means to live as one´s own self with all our flaws and edges. Trier´s portrayal of one´s daily life and the tantalizing glimpses of greatness in regular mundane routines is praiseworthy. The Worst Person in the World has recently received 2 Academy Awards nominations for Best...

Competing Fundamentalisms: Making Sense of the Theological Features of Religious Fundamentalism

We live in a post 9/11 world, where religious fundamentalism often engenders violent conflicts between nations and within nations, between religious communities and within religious communities. For example, religious intrastate conflicts tend to last longer than non-religious ones.[1] Moreover, negotiated peace settlements are unlikely in civil wars in which at least one belligerent party anchors its demands in a religious tradition.[2] Thus, it behoves us to pay close attention to sacred scriptures and traditions, especially how their violent interpretations foment conflicts. In his book, Competing Fundamentalisms: Violent Extremism in Christianity, Islam, and Hinduism, Sathianathan Clarke takes up this task. Striving for a global and inclusive understanding of religious fundamentalism, Clarke offers a conceptualisation of contemporary religious fundamentalism by shedding light on its religious features against the background of a...

Blog

Sex, criminality, hopelessness, and…beauty

“Today, they brought a little boy to the shelter again. He was beaten violently by his mother and step-father. Both of them are drug-addicted people, the child is not well, and we took him to hospital. The incident has already been reported to the relevant authorities.”   This text was written by Kamala Aghazade, a director in Shelter and Rehabilitation Centre for Children. Kamala shares reports about the activities they do in the centre and the children coming there. Generally, these children come from families in which parents suffer from different types of addiction, are prone to perpetrating violence or cannot take care of their children for some reason. However, most of the texts she shares are about children with drug-addicted parents. Kamala says such parents and families are on the increase...

ইহা সত্য

সত্য কী?  আমরা সত্য শব্দটির মাধ্যমে ঠিক কী বুঝি? অতিবুদ্ধিমান কেউ ‘মিথ্যার বিপরীত বিষয় বা ঘটনা হল সত্য’ এই সিদ্ধান্তে উপনীত হতে পারেন। কিন্তু এতে স্পষ্টভাবে কিছু বোঝা গেল কী? উল্টো সংজ্ঞা প্রদান করতে গিয়ে সত্যকে বোঝার প্রচেষ্টা অধিক জটিল হয়ে পড়ল।তাছাড়া বর্তমানে আমরা শুনছি ‘Validity of truth expires on’- এর মতো বাক্য। অর্থাৎ একটি নির্দিষ্ট সময় পরে সত্যের গুণগতপরিবর্তন ঘটে। আমরা আরো জানছি, শুনছি—সত্য একটি ‘সাধারণীকৃত’ শব্দ। একে অন্তত তিনটি অংশের সমষ্টি বলে ধরে নেওয়া যায়।যথা : যৌক্তিক সত্য, অভিজ্ঞতালব্ধ সত্য এবং যুক্তি ও অভিজ্ঞতার সম্মিলনে সমন্বিত  সত্য। বিষয়টি কি অনেকটা সেই বিখ্যাত দার্শনিকবাক্যের মতো হয়ে গেল—‘আমরা বহুকে জানি কিন্তু দেখি না। এক-কে দেখি কিন্তু জানি না’। সত্যের প্রকৃতি এবং মানদণ্ড কী? এ সম্পর্কেমানবচিন্তার ইতিহাস-ই বা কী বলে? সঙ্গতিবাদ মোতাবেক একটি উক্তি তখনই সত্য যখন তা ইতোমধ্যে সত্য বলে...

Notes from Tbilisi International Book Festival

As a writer, my friends on my social media accounts mainly consist of people working in the publishing sector and media: Publishers, writers, journalists, translators. Quite a lot of people on this list are from Georgia, a neighbouring country to my homeland. Since the year started, posts shared by Georgians on my friend lists suddenly became more intensive and colourful, my newsfeed flowed with dynamic and heart-warming photos and videos from book events in Tbilisi. While I was following those photos and videos with amazement and jealousy, they were not surprising because Tbilisi has been declared “The book capital of the world” in 2021. This has turned the city into a hotspot of culture where writers, poets and publishers from different corners of the world have gathered. It took me not...

Ananta Bijoy’s Murderers Are Found Guilty, and Shuddhashar Pledges to Keep His Dreams Alive

Between 2013 and 2016, numerous secular writers, religious minorities, and activists in Bangladesh were hacked to death by radical Islamists. This was a deliberate and coordinated onslaught on freethinking and free speech in Bangladesh. That particularly gruesome violent stage seems to have quietened, but the chilling effects persist through censorship and fear and an oppressive regime.   Ananta Bijoy was among those killed by religious extremists who brutally killed him in front of his home in Sylhet on 12 May 2015. A banker by profession, Ananta wrote about science, edited a science magazine named ‘Jukti’, and was an organiser of the local Ganajagaran Mancha.  After a long delay, the verdict has finally been delivered in Ananta Bijoy’s murder case. Four of the five charged have been found guilty and face the...

Let Love Live! Stop LGBT persecution

We are deeply concerned about the safety of two Bangladeshi teenage girls currently being targeted because of their sexuality. The leaked news about a botched tryst between these two teenagers has sent local media and social network users into a frenzy. Disregarding the safety and security of the teenagers and their family members, the local media has revealed both their names and addresses. In the context of Bangladesh, this media attention is alarming. Bangladesh has a long history of persecuting LGBT people. The Bangladeshi queer community has been persecuted by the sexual majority, religious extremists, and the governments. In 2016, two gay-rights activists — Xulhaz Mannan and Mahbub Rabbi Tonoy — were killed in a machete attack carried out by the radical militant outfit Ansar Al Islam.  That attack brought...

Stop Putin! Stop War!

Shuddhashar stands in solidarity with the Ukrainians as we watch with horror the Russian invasion of their country. With this destructive and entirely unprovoked assault, Russia is aggressively seeking to destroy Ukrainian’s democratically elected government and the people’s own rights to independence and human dignity. Further, such flagrant violation of the territorial integrity of a sovereign nation has put global peace and security at great peril. This illegitimate war waged by Putin will only delay humanity’s efforts to address issues that are far more important and urgent. The world has only begun to recover from the onslaught of a pandemic; there are mounting challenges on the climate front that need to be immediately addressed; and countless citizens around the world are struggling. Yet, we find ourselves to be powerless spectators...
শুদ্ধস্বর
Translate »
error: Content is protected !!
Scroll to Top