Opinion

  • Is Bangladesh a ‘crossfire’-state? | Sarwar Tusher

    We need to find a way out of this unfortunate political reality. We need to build a pluralistic and decentralised democracy so that the law enforcement forces & state mechanisms run with the people's money cannot be used to kill or repress different sections of the citizens. Bangladesh will not be free from the scourge of destructive state power without transforming the colonial oppressive state structure into a people's republic; into a state that is fully accountable to its citizens.
        The prevalence of 'extrajudicial killings', popularly known as 'crossfire' killings in Bangladesh, is seen in different countries of the world as a matter of 'state of exception'. But in Bangladesh, the pace of continuity of such state killings in the pretext of 'crossfire' is unprecedented...

  • Opinion | Joy Bangla pseudo-liberalism on the eve of progressive change | Ikhtisad Ahmed

    To defeat Awami League’s authoritarianism, Bangladeshi progressives must dismantle the structure of influence of this faux liberalism, to afford future protesters a fighting chance to develop a movement. The alternative is permanent defeat and the end of progressivism, of hope.
      Sajeeb Wazed Joy criticises the American police for brutally suppressing its citizens during the ongoing Black Lives Matter protests, and demands answers from the US envoy to Bangladesh. Professor Imtiaz Ahmed criticises the American police for unlawful arrests and killings at expert academic discussions about state terrorism, and questions the validity of looking upon the US as a world leader paving the way for lesser nations. Eminent urban and expatriate Bangladeshis send hashtags into the ether to show solidarity with the Black Lives Matter movement. Pseudo-liberal...

  • অভিমত | মতাদর্শিক দ্বৈতচিন্তা | সারোয়ার তুষার    

    গণতন্ত্র শব্দটির মতাদর্শিক ব্যবস্থাগত মানে হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়ে আছে, পাঁচ বছর অন্তর অন্তর ভোটাভুটি। কোন গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় ভোটাভুটি যে থাকবে না তা না, নিশ্চই থাকবে। রাজনীতি অর্থনীতি সহ জনসংশ্লিষ্ট সমস্ত ইস্যুর ব্যবস্থাপনার অসংখ্য উপায়ের মধ্যে নির্বাচন হতে পারে একটা মাত্র উপায়, কোনভাবেই একমাত্র উপায় না।
      জর্জ অরওয়েলের ভুবনবিখ্যাত উপন্যাস ১৯৮৪'র অন্যতম একটি চাবিশব্দ হলো Doublethink বা দ্বৈতচিন্তা। ওশেনিয়া নামক সর্বাত্মকবাদী রাষ্ট্রের ক্ষমতাসীন পার্টি জনগণের মধ্যে এক দীর্ঘস্থায়ী প্রপাগান্ডা ও মনস্তাত্ত্বিক বিভ্রান্তি তৈরিতে ডাবলথিংক নামক দুর্দান্ত কার্যকর কৌশলের ব্যবহার করত। ডাবলথিংক বা দ্বৈতচিন্তা হলো  power of holding two contradictory beliefs in one's mind simultaneously and accepting both of them ; তথা পরস্পর বিপরীতধর্মী দুটি আইডিয়াকে যুগপৎভাবে ধারণ করা এবং দুটোকেই সত্য বলে বিশ্বাস করার ক্ষমতা। বইয়ের একেবারে শুরুর দিকে, দ্বৈতচিন্তা হলো সেই প্রক্রিয়া যার মাধ্যমে গণস্মৃতিকে নিয়ন্ত্রণ করা হয়,...

  • অভিমত | ‘অপরায়ন’ এর রাজনীতি | সহুল আহমদ

    সম্প্রতি ব্রাহ্মণবাড়িয়াতে আহমদিয়া সম্প্রদায়ের এক শিশুর লাশ কবর থেকে তুলে ফেলার ঘটনা ঘটেছে। অবশ্য, আহমদিয়াদের উপর এমন আক্রমণ বিচ্ছিন্ন কোনো ঘটনা নয়, এ বছরের জানুয়ারিতে তাদের বাড়িঘরে হামলা চালানো হয়। আহমদিয়াদের উপর এমনতর হামলাকে বাংলাদেশ অপরাপর সংখ্যালঘুদের উপর হামলা থেকে বিচ্ছিন্নভাবে পাঠ করা অসম্ভব। কিন্তু, আহমদিয়া শিশুর লাশ তুলে ফেলা বা বাড়িঘরে হামলা করার ঘটনাসমূহকে দেওবন্দীসহ বিভিন্ন ইসলামিস্ট দলগুলো কর্তৃক ‘অপরায়ন’ প্রক্রিয়া এবং সেই প্রক্রিয়ার ‘বাস্তবায়ন’ হিসাবেও দেখা দরকার। পরিচয়বাদী রাজনীতির জন্য, বিশেষত যে কোনো গোষ্ঠীর পরিচয় নির্মাণ ও বোঝার জন্য, ‘আদারিং’ বা ‘অপরায়ন’ খুব জরুরি; এটি আসলে একটি প্রক্রিয়া, নিজেকে (সেলফ) চিহ্নিত করার পাশপাপাশি ক্রমাগত ‘অপর’ তৈরির প্রক্রিয়া। তবে, নিজের গোষ্ঠীগত পরিচয় নির্মাণের জন্য ‘আমি কে’ বা‘আমি কীভাবে নিজেকে দেখছি’ কেবল এই প্রশ্নের উত্তরে পোষায় না, বরঞ্চ আমি কীভাবে অন্যের চেয়ে আলাদা সেটাও সমভাবে নির্ধারণ করতে হবে।...

  • Opinion | Redefining globalisation in time of new normal? | Wasi Ahmed

    It is well over two decades since the global value chain (GVC) has earned the distinctive attribute of being the most influential factor in mapping pathways for countries — rich or poor alike — to not only grow but, more than anything, to survive in the thickly connected globalised world.
      Now that many people across the globe tend to deny globalisation its efficacy in the COVID-induced circumstances of global trade and economy, is it at all appropriate to be too impatient to say globalisation was a hype? Many are highlighting the dangers of relying on global value chains — and in particular, those linked to China — leading to the talk of 'de-globalization'. Curiously, these dangers are being flagged by none other than powerful economies. Not to mention...

  • Opinion | Can Bangladesh cope with the loss of ‘knowledge-guardians’ in the post-Covid-19 world? | Asheque Haque

    Covid-19 has hit Bangladesh hard. With more than two hundred thousand reported cases of infection according to the government sources and 2600 deaths at the time of this writing, becoming among the top twenty countries with the most reported infections. Bangladeshi mainstream media and citizen journalists have also reported over the last few months of many more deaths with “Covid-19 like symptoms”. In some cases, the speculations were that the number of deaths due to the pandemic was several times more than what was being reported. We might never know the true extent of Bangladeshi lives affected by this pandemic. But we can already see the passing away of a high number of prominent individuals in the country. Bangladeshis were not lacking in human resources – this much is true....

Blog

  • মহাভারতের ঘরসংসার ৩: পোলাপান | মাহবুব লীলেন

    মাইয়ারা বরং অনেকটা বিনিময়যোগ্য সম্পদের মতোই গণ্য হইত। কুন্তীরেও তার বাপে ছোটবেলা দোস্তর বাড়িতে দান কইরা দেয়। কোনো কারণ ছাড়াই। আবার অবলীলায় শত্রুপক্ষেও মাইয়া দিয়া দিবার ঘটনা আছে। দুর্যোধনের মাইয়া লক্ষ্মণার বিবাহ হয় কৃষ্ণের পোলা শাম্বর লগে। কুরুযুদ্ধে সে শ্বশুরের বিপক্ষেই যুদ্ধ করে; আবার ভীমের হাতে মরা জরাসন্ধের মাইয়া করেণুমতি আছিল নকুলের বৌ…
      মাইয়ার লাইগা বাপের কিংবা পরিবারের কিছু করার উদাহরণ মহাভারতে মাত্র দুইটা। এর মাঝে একটা দ্রৌপদীর বাপ দ্রুপদের। দৃশ্যত মাইয়ার পক্ষে যুদ্ধ করতে গিয়া ঝাড়ে বংশে উজাড় হয় দ্রুপদ… কিন্তু কুরুযুদ্ধে দ্রুপদের এই অংশগ্রহণ কতটা তার মাইয়ার লাইগা আর কতটা কুরুরাজ্য-সমর্থিত দ্রোণাচার্যের কব্জা থাইকা তার হারানো অর্ধরাজ্য উদ্ধার করার লাইগা; সেইটা বোঝা মুশকিল… কারণ দ্রৌপদীরে পাঁচ ভাইয়ে ভাগ কইরা নেওয়া কিংবা তার কোনো অপমান যন্ত্রণায়ই দ্রুপদরে আগাইয়া আসতে দেখা যায় নাই কোনোদিন… আস্তা মহাভারতে; এবং জানামতে আস্তা...

  • মধ্যবিত্তকথা ও সাম্প্রদায়িকতা | কামরুজ্জামান জাহাঙ্গীর

    তুমুল করতালির মতো কথাটি এখন শোনা যায়, বাংলাদেশের মানুষ ধর্মভীরু হলেও ধর্মান্ধ নয়। তো কথা হচ্ছে, এমন একটা, মোহনীয় আর ঘোরপ্যাঁচের কথা দেশের সমস্ত মানুষ না-জানলেও যারা বলেন তারা তাতে বেশ তৃপ্তি পান। একধরনের শারীরবৃত্তীয় সুখও হয়ত পেয়ে থাকেন। এতে আর যাই হোক, কথকের আইডিয়া বা ইচ্ছাটা ভালোই জাহির হয়। এ যারা বলেন বা লিখে জানান তারা মূলত মধ্যবিত্ত, কিন্তু যাদের সম্পর্কে বলেন তারা তো আর সবাই মধ্যবিত্ত নয়। মধ্যবিত্ত হোক আর উচ্চবিত্ত বা অন্ত্যজ শ্রেণীর হোক, ধর্মবিষয়ক এমন কথকতায় আসলে একধরনের কায়দাই প্রকাশ পায়। রাষ্ট্র, সমাজ, পরিবার কিংবা ব্যক্তির নানাবিধ সম্ভাবনা বা সমস্যা নিয়ে মধ্যবিত্তই ভাবেন, বেশ ভাবেন, ভাবতে ভাবতে হয়ত পেরেশানীতেও পড়েন। এও এক জানার বা বোঝার বিষয় বৈকি। তো, এই যে জানার বা বোঝার বিষয় তাতে তো সমস্যা কিছু নাই, দৃশ্যত মনে হবে অজস্র সমাধানই একসময়...

  • মহাভারতের ঘরসংসার ২: ভীষ্মের ঘটকালি | মাহবুব লীলেন

    বেশিরভাগ কাহিনীমতে ভীষ্মের মা গঙ্গাও আছিলেন একজন অপ্সরা। কোনো একটা কারণে বাচ্চা টিকাইতে পারত না রাজা শান্তনু। ফলে এক বাচ্চার চুক্তি কইরা গঙ্গারে পরপর আটটা বাচ্চা জন্মাইতে হয়। পয়লা সাতটাই মরে শান্তনুর হাতে; পরে ক্ষেইপা শান্তনুরে আর আট নম্বর পোলা দেবব্রত বা ভীষ্মরে ছুইতেও দেয় না গঙ্গা। নিজেই নিয়া গিয়া বড়ো কইরা বাপের কাছে পাঠায়…
      মহাভারতের দীর্ঘজীবী চিরকুমার দেবব্রত ভীষ্ম নিজের পরিবারে তিন প্রজন্মের লাইগা ঘটকালি করছেন মোট পাঁচখান। বৈশিষ্ট্যের দিক দিয়া পাঁচটা বিয়াই একটা থাইকা আরেকটা সম্পূর্ণ আলাদা… তার পয়লা ঘটকালি বাপের বিয়ার। বাপ শান্তনুর বিবাহের প্রস্তাব নিয়া তিনি গিয়া হাজির হন সত্যবতীর বাপের বাড়ি… আবিয়াইত্যা সত্যবতীর একটা বারো বছরের পোলা থাকায় বিয়ার বাজারে তার অবস্থা আছিল খুবই খারাপ। তারে বিয়া করলে তার পোলারেও খাওয়াইতে হইবে চিন্তায় জোয়ান-তাগড়া কোনো বেটায় বিবাহের প্রস্তাব দিত না তারে। যে দুই...

  • মহাভারতের ঘরসংসার ১: বিয়াশাদি | মাহবুব লীলেন

    মহাভারতে অন্তত একটা পরকীয়া কাহিনী আছে। আবার বিবাহিত বৌ ভাইগা গিয়া অন্যের লগে সংসার কইরা বাচ্চাকাচ্চা জন্মদিবার পরে ফিরা আইসা সংসার করার ঘটনাও এইটা…
        মহাভারত মূলত একখান গেরস্থালি উপখ্যানের সমাহার। জমিজমা নিয়া মারামারি কামড়াকামাড়ির লগে লগে এই পুস্তকটা বিয়াশাদি-জন্মদান কিংবা পোলাপানের লগে সম্পর্কের বিবরণেও রীতিমতো বিচিত্র-ব্যাপক… কৃষ্ণ উপাখ্যানের কারণে এক বেটার একাধিক বৌ থাকার কথা সকলেই জানে; দ্রৌপদীর কারণে জানে এক নারীর বহুপতির কথা। কুন্তীর কারণে একাধিক পুরুষ দিয়া নারীর গর্ভসঞ্চার কিংবা দ্বৈপায়নের কারণে ভাইয়ের বৌরে গর্ভবতী করার কথাও সকলের জানা… অন্যদিকে কর্ণ কিংবা দ্বৈপায়নের জন্মঘটনার কারণে যে কোনো তরুণীরে চাইপা ধইরা গর্ভবতী করায় বামুনগো অধিকারের স্বীকৃত প্রচলনগুলা মহাভারতের প্রাথমিক পাঠ্য উপাদান। তাই এইসব বিষয়ে কথা না বাড়াই… দ্রৌপদী আর উত্তরার বিবাহ দুইটা রীতির দিক থাইকা মহাভারতের অন্যসব বিবাহ থাইকা ভিন্ন। প্রথমতো; এই দুইটা বিবাহই ঘটছে কইন্যার বাড়িতে। মহাভারতের...

  • চিকিৎসাশাস্ত্রের উপনিবেশায়ন আফ্রিকার জন্য নতুন কিছু নয়, মূল:কার্সটেন নকো | অনুবাদ : শুভম ঘোষ

    [অনুবাদকের মন্তব্য: করোনা দুনিয়াব্যাপী মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়ার পর এর ভ্যক্সিন নিয়ে বিভিন্ন মহল থেকে বিবিধ কথা বলা হচ্ছে, আশা-নিরাশার দোলাচলে ভাসছে পুরো পৃথিবী। এমন পরিস্থিতিতে কোনো কোনো মহল থেকে কোভিড-১৯ এর ভ্যক্সিনের পরীক্ষামূলক ব্যবহারের জন্য আফ্রিকানদের শরীরকে গিনিপিগ বানানোর কথা বলা হয়। একজন ফরাসি ডাক্তার এমন একটা মন্তব্য করার তা নিয়ে বেশ বিতর্কের ঢেউ উঠে। কার্টেন নকো এই মন্তব্যকে বিচ্ছিন্ন কোন ঘটনা হিসাবে দেখছেন না, বরঞ্চ কয়েকশন বছরের উপনিবেশেরই উত্তরাধিকারী হিসাবে দেখছেন; পূর্বেও চিকিৎসার অজুহাতে বিভিন্ন সময় আফ্রিকানদের শরীরকে ব্যবহার করা হয়েছে। এর গভীরে রয়েছে উপনিবেশায়ন সৃষ্ট বর্ণবাদ ও বিমানবীকিকরণের গভীর প্রক্রিয়া। কার্সটেন নকো জিম্বাবুয়ের আইনজীবী এবং জনহিতৈষী কাজের সাথে জড়িত আছেন। মেডিকেল কলোনাইজেশন বা চিকিৎসাশাস্ত্রের উপনিবেশায়ন নিয়ে তার লেখাটা প্রকাশিত হয়েছে আল জাজিরায়, ৮ এপ্রিল ২০২০।] ...

  • Digital Security Act and the theocratic state-ocracy | Sohul Ahmed and Sarwar Tusher

    When the world is in deep trouble confronting Covid 19, in a ‘war’ against an invisible virus, the Bangladesh state and its government have been waging an unannounced war against its own citizens. This war is being executed in two forms. On the one hand, the lives of millions of people have been put at risk due to the self-destructive decisions and structural indecisiveness of the government. On the other hand, the basic civil and political rights of citizens who are criticizing such perilous decisions and pointing out the flaws of such policies are being forcibly taken away or denied by the government. Dissident and critical citizens have been abducted and gone ‘missing’ for days or months at a time; then the news of their arrest on non-bailable offences...

Statement

  • Mubarak Bala is incarcerated for a victimless crime. Set him free!

    Shuddhashar is deeply alarmed by the arrest of Mubarak Bala, a well-known humanist, who serves as the president of the Humanist Association of Nigeria. Persecution of the non-religious is nothing new; its history can be traced to the age of antiquity when belief in a creator of the world buttressed the legitimacy of the state. Anyone who was found to lack belief in the former was perceived to be subversive to the latter. The philosophical texts of Cārvāka, an Indian materialist school, were systematically censored and later destroyed. Under the decree of Diopeithes, the pre-Socratic Greek Philosopher Anaxagoras was...

  • Clamping down on dissidents will not stem the tide of coronavirus deaths

    The Covid-19 pandemic, currently sweeping across the globe and claiming thousands of lives every day, has laid bare the remarkable ineptitude of authoritarian leaders worldwide in resolving the humanitarian crisis that it has engendered. Demagogues today spend more time in flouting social distancing regulations and in clamping down on their critics than in stemming the spread of the virus. At the same time, they refuse to show leniency to their staunched critics—many of whom are already languishing in prison. On the contrary, from Bangladesh to Venezuela, now that dissenting voices have swelled, more and more people are finding themselves...

  • It can’t be the job of any civilized government to suppress freedom of expression.

    Freedom of expression has never really existed in Bangladesh. Governments as well as religiously, politically, and economically powerful forces have always attacked any opinions and criticisms that conflict with their views and interests. In recent years, a self-destructive attempt to destroy all democratic values and culture has been made by the Bangladesh government. Looting is being carried out in the name of development projects by the state and ruling party. At present, Bangladesh is facing a terrible coronavirus crisis, and this crisis has been made worse by willful acts of the government. Ignoring the advice and warnings of civil...

  • Concern for Soheil Arabi, imprisoned for blasphemy in Iran

    We express our concern and support of Soheil Arabi, an Iranian atheist, activist, and blogger who has been in prison for blasphemy charges since 2013.   Arabi was arrested in December 2013 and sentenced to death for blasphemy by insulting the prophet, Khamenei, and other Iranian officials in a Facebook post. In 2015, after an appeal, his sentence was reduced to several years in prison. While in prison, he has continued to write letters describing the inhumane prison conditions, torture, and the situation of political prisoners in Iran. For writing about prison conditions and his critique of the Islamic regime in Iran, three additional years have...

Review

  • আলতাফ পারভেজের বয়ানে আলথুসের ও মার্ক্সীয় রাষ্ট্রতত্ত্বের ঐতিহ্যে ‘ভাবাদর্শ’ | সহুল আহমদ

    ‘(যে রাষ্ট্রকে সমাজের ওপর চাপিয়ে দেয়া হয়েছে সেই) রাষ্ট্রকে সমাজের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসাই হলো মুক্তি’ -কার্ল মার্ক্স   বাংলাদেশ নামক এই ভূখণ্ডের জনগণ হিসেবে আমরা অতি অল্প সময়ের ব্যবধানে দুটো রাষ্ট্রের জন্ম-প্রক্রিয়ার সাথে জড়িত হলেও আমাদের বুদ্ধিবৃত্তিক জগত ও পরিমণ্ডলে রাষ্ট্রনৈতিক চিন্তাভাবনার অনুপস্থিতি লক্ষণীয়। এমনকি, রাষ্ট্রনৈতিক যে হাজার রকমে চিন্তাভাবনা দুনিয়াজুড়ে চালু রয়েছে সেগুলো সম্পর্কেও আমাদের অদ্ভুত অনীহা রয়েছে। (হয়তোবা এর কোনো ঐতিহাসিক-রাজনৈতিক কারণ থাকতে পারে, ইতিহাসের মধ্যে সেটার সন্ধান করাও জরুরি।) এই জন্যই বোধহয় এখনকার বুদ্ধিবৃত্তিক পরিমণ্ডলে দেশ, রাষ্ট্র, সরকার ধারণাগুলো মিলেমিশে একাকার হয়ে গিয়েছে; ব্যতিক্রম তো অবশ্যই আছে। বাংলাদেশের বামপন্থী ও ডানপন্থী রাজনীতির সাথে যারা জড়িত তাদের কাছে মার্ক্স-লেনিন (স্বাভাবিকভাবেই) খুব পরিচিত ব্যক্তিত্ব হলেও, তাদের রাষ্ট্র-দর্শন নিয়ে এখানে খুব একটা উচ্চবাচ্য করতে দেখা যায় না, অর্থাৎ, হালকা ওপর ঝাপসা (একেবারে মৌলিক) কিছু আলোচনা ছাড়া গভীরভাবে পর্যালোচনা করে দেখার কোনো তাগিদও...

  • নিরামিষ-যাপনের বিপরীতে আনন্দিত অন্ধকার | রোখসানা চৌধুরী

    'আমিষ' শিরোনামের অহমিয়া একটি সিনেমাকে কেন্দ্র করে কিছুদিন যাবৎ তুমুল আলোচনা চলছে।তা চলতেই পারে।কথা হলো,আমি সিনেমার গল্পটির সারসংক্ষেপ শোনার পর ছবিটি দেখার আগ্রহ হারিয়ে ফেলেছিলাম।ক্যানিবল বা নরখাদক শুধু গল্পে না, বাস্তবেও এর নমুনা মিলেছে একাধিকবার।বিদেশি ছবিতে বিষয়টি উপস্থাপিত হয়েছে বহুবার।

    অতি সাম্প্রতিক কালেই, প্ল্যাটফর্ম(ফেব্রুয়ারি,২০২০)নামের একটি স্প্যানিশ সিনেমার নাম উল্লেখ করা যায়,ক্যানিবলিজমকে কেন্দ্র করে নির্মিত যে ছবিটি দর্শকের মনোযোগ ধরে রেখেছে।

     কিন্তু 'আমিষ' শীর্ষক ছবিটিতে যে প্রেক্ষাপট ব্যবহার করা হয়েছে এবং যেভাবে -- তা দর্শকের মনে-মগজে-মননে বহুবিধ প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে।

    ছবি দেখার পর আমার নিজের  প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া ছিল অত্যন্ত স্বাভাবিক,'সহজাত সংস্কার' প্রসূত।মোট কথা,ছবি শেষ হওয়া পর্যন্ত আমার কাছেও পুরো বিষয়টি দুর্বোধ্য আর অস্পষ্ট ছিল।তারপর ধীরে ধীরে এই ছবির প্রাঞ্জল মেটাফোরিক রূপটি আমার চোখে স্পষ্ট হতে থাকে। রিভিউটি লেখার উদ্দেশ্য আমার এই ব্যক্তিগত ব্যাখ্যাটুকু তুলে ধরা।

Translate »